শিরোনাম:

পাপনকে ক্রিকেট থেকে দূরে থাকতে বলেছেন ডাক্তার

নাজমুল হাসান পাপন টানা দুই মেয়াদে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এর সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। শুধু তাই নয়, মাঝে মাঝে একাদশ সাজানো, টসের সিদ্ধান্ত, দলীয় সিদ্ধান্ত ইত্যাদি বিষয়ে নাক গলিয়ে সমালোচিতও হয়েছেন। তারপরেও তিনি ক্রিকেটে নিজেকে আরও বেশি সম্পৃক্ত করে রাখেন। সেটা ক্রিকেট প্রেম থেকেই। এবার তিনি নিজেই বললেন, ডাক্তার নাকি তাকে ক্রিকেট থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) বিসিবির বার্ষিক সাধারণ সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘ডাক্তারের পক্ষ থেকে আমাকে বারবার বলা হয়েছে যে, ক্রিকেট থেকে যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব দূরে সরে যেতে। অন্তত বোর্ডে থাকলেও এই জিনিসগুলো যেন না করি। মাঝখানে এক বছর আমি এটার সাথে ছিলাম না, ভালোই ছিলাম। কিন্তু এখন আবার টের পাচ্ছি, অনেক সময় নিয়ে নিচ্ছে ক্রিকেট। সবার খোঁজ নেয়া, টিম নিয়ে কথা বলা- এ জিনিসটা যে আমার শুরু হয়েছে, আসলে এটা অনেক সময় নিয়ে নিচ্ছে আমার।’

বিসিবি সভাপতি হিসেবে প্রায় ৯ বছর ধরে বিসিবির দায়িত্ব পালন করছেন পাপন। আগামী অক্টোবরের নির্বাচনে তারই নির্বাচিত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। এখনো দল হারলে তিনি আবেগতাড়িত হয়ে পড়েন। মন খারাপ হয়ে যায়। পাপন আরও বলেন, ‘আমার একটা খারাপ দিক হলো, বাংলাদেশ হারলে আমি মেনে নিতে পারি না। বাংলাদেশ হারলে অনেক মেজাজ খারাপ হয়। আমার বউ-বাচ্চারা কেউ আমার সামনে আসে না। এতটা খারাপ লাগে। এটা আসলে অনেক বেশি সময় নিয়ে নিচ্ছে, যা নিয়ে আমার আগে ধারণা ছিল না।’