শিরোনাম:

রাজবাড়ীতে নারীকে একসঙ্গে দুই ডোজ টিকা

ইসমত আরার স্বামী নাহিদুল ইসলাম স্বপন সাংবাদিকদের বলেন, সকালে স্ত্রীকে নিয়ে টিকা কেন্দ্রে গিয়েছিলাম। স্বাস্থ্যকর্মী প্রথমে ইসমত আরার বাম হাতে টিকা দেন। ইসমত আরা ডান হাত দিয়ে তার টিকা গ্রহণের স্থান ধরে রেখেছিলেন। সে সময় অন্য এক স্বাস্থ্যকর্মী তার ডান হাতেও টিকা দেন।

এ ঘটনায় নাহিদুল ইসলাম স্বপন উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি আরও অভিযোগ করেন, কেন্দ্রে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে রাজবাড়ী জেলা সিভিল সার্জন ডা. ইব্রাহিম টিটন বলেন, ভুলবশত ইসমত আরাকে দুই ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। তিনি ভালো আছেন।

টিটন বলেন, বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তাকে (আরএমও) তদন্ত কমিটি গঠন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন এলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে, সারা দেশে একযোগে শুরু হয়েছে গণটিকা কার্যক্রম। শনিবার (০৭ আগস্ট) থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সারা দেশে ভ্যাকসিনেশন ক্যাম্পেইন পরিচালনা করছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

সারা দেশের ৪ হাজার ৬০০টি ইউনিয়ন, ১ হাজার ৫৪টি পৌরসভা ও ১২টি সিটি করপোরেশনের ৪৩৩টি ওয়ার্ডে করোনার টিকা দেওয়া হবে। প্রাথমিকভাবে ৩২ লাখ মানুষকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে অধিদপ্তর। এ ক্যাম্পেইনের কার্যক্রমে ৩২ হাজার ৭০৬ জন টিকাদানকারী এবং ৪৮ হাজার ৪৫৯ জন স্বেচ্ছাসেবী নিয়োজিত রয়েছেন।

রাজধানীর মহাখালীতে বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অ্যান্ড সার্জনসের (বিসিপিএস) সভাকক্ষে শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম এসব কথা জানান।

তিনি বলেন, ৭ আগস্ট থেকে শুরু হওয়া ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে মূলত ২৫ বছরের বেশি বয়সী জনগোষ্ঠীকে টিকার আওতায় নিয়ে আসা হবে। তবে এ ক্ষেত্রে পঞ্চাশোর্ধ জনগোষ্ঠী, নারী, শারীরিক প্রতিবন্ধী এবং দুর্গম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

ক্যাম্পেইন কার্যক্রমের আওতায় ৭ আগস্ট দেশের সব ইউনিয়ন, পৌরসভা ও সিটি করপোরেশনে টিকা কার্যক্রম শুরু হবে। ইউনিয়নের যেসব ওয়ার্ডে সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির কারণে ৭ আগস্ট করোনার টিকা দেওয়া সম্ভব হবে না এবং পৌরসভার কোনো ওয়ার্ডে ৭ আগস্ট টিকা দেওয়া সম্ভব হবে না, এসব জায়গায় ৮ ও ৯ আগস্ট টিকা দেওয়া হবে। তবে ৭ থেকে ৯ আগস্ট এই তিনদিন সিটি করপোরেশন এলাকায় ভ্যাকসিনেশন চলবে। ৮ ও ৯ আগস্ট দুর্গম ও প্রত্যন্ত এলাকায় টিকা দেওয়া হবে। আর ১০ থেকে ১২ আগস্ট ৫৫ বছরের বেশি বয়সী মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর মাঝে টিকাদান কার্যক্রম চলবে।