শিরোনাম:

শুক্রবার জিতলেই সিরিজ বাংলাদেশের, ঘুড়ে দাঁড়াতে মরিয়া আহত অস্ট্রেলিয়া

টাইগারদের ক্রিকেটাকাশে জমে থাকা মেঘ যেনো ধীরে ধীরে সরতে শুরু করেছে। বিশ্বজুড়ে চলমান প্যান্ডমিকে বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ে সফরে গিয়ে যে খেল দেখালো, সেখান থেকেই মূলত মেঘ সরে যেতে শুরু করে। জিম্বাবুয়ানদের মাটিতে ওদেরই কুপোকাৎ করে প্রথমবারের মতো তিন তিনটি সিরিজ জিতে দেশে ফিরে টাইগার সেনারা। জয়ের ধারাবাহিকতা কখনওই বজায় রাখতে পারে না লাল-সবুজের দল। এটা নিয়মে পরিণত হলেও এবারই তারা ব্যতিক্রম। টাইগারবাহিনী অপবাদমুক্ত হলো জিম্বাবুয়ের পরে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টানা দুই ম্যাচে জয়ের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে।

এবার সিরিজ জয়ের স্বপ্ন বুনছেন ক্রিকেটাররা। পাঁচ ম্যাচ সিরিজের দুই ম্যাচ জিতে এগিয়ে থাকা বাংলাদেশের প্রয়োজন বাকি তিন ম্যাচে একটি জয়। সিরিজ জিতলে অস্ট্রেরিয়ার বিরুদ্ধে ইতিহাস গড়া হবে টাইগারদের। আজ মিরপুরের সবুজ গালিচায় সন্ধ্যা ৬টায় মঞ্চায়ণ হবে অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশের মধ্যে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচ।

আইসিসির স্বীকৃতি পাওয়ার পর ১৫ বছর বয়স হয়ে গেছে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের। এই সময়টায় বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া মুখোমুখি হয়েছিল মাত্র ৪ ম্যাচে। সব ম্যাচেই জিতেছিল অজিরা। ওই সময়ে টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ নিজেদের ভালো দল হিসেবে প্রমাণে ব্যর্থ হওয়াটাও দ্বিপক্ষীয় সিরিজ না খেলার কারণ।

এবার এক সিরিজেই ৫ ম্যাচ। চার ম্যাচ হারের বিপরীতে ইতোমধ্যে দুটি জয় এসেছে বাংলাদেশের। ক্রিকেট বিশ্লেষকরা মনে করছেন, অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে বিগত পরাজয়গুলোর প্রতিশোধ নেওয়ার এটাই মোক্ষম সময়। সাকিব-মাহমুদুল্লাহরা পারবেন বলেও তাদের বিশ্বাস। তবে অস্ট্রেলিয়া আজ ঘুরে দাঁড়াতে চাইবেন। দুই ম্যাচ হারের পর নিজ দেশেই ভীষণ সমালোচনার মুখে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটাররা। যার পরনাই লড়াই করবেন বাকি তিন ম্যাচ। সিরিজ জেতারও দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করলেন অধিনায়ক ম্যাথিউ ওয়েড।