শিরোনাম:

সিলেটে প্রবাসীর গুলিতে স্কুলছাত্র নিহত

সিলেটের বিশ্বনাথে জমির মাটি কাটা নিয়ে হাতাহাতির একপর্যায়ে যুক্তরাজ্য প্রবাসীর গুলিতে সুমেল মিয়া (১৮) নামে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এসময় গুলিতে আহত হন তার পিতাসহ আরও ৩ জন।

শনিবার (১ মে) বিকেলে উপজেলার চাউলধনী হাওর পাড়ের চৈতন-নগর গ্রামের সড়কে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সুমেল ওই গ্রামের আব্দুল মানিকের ছেলে ও স্থানীয় শাহজালাল ঘাগুটিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র।

এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হয়েছেন সুমেলের পিতা আব্দুল মানিক (৫০), চাচা যুক্তরাজ্য প্রবাসী মনির মিয়া (৪৫) ও চাচাতো ভাই সালেহ আহমদ (৩০)। তাদেরকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযুক্ত যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাইফুল আলম চৈতন নগরের পার্শ্ববর্তী ইসলামপুর গ্রামের মৃত আপ্তাব আলীর ছেলে ও চাউলধনী হাওরের ইজারাদার দশঘর মৎস্যজীবী সমিতির ফাউন্ডার। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক রয়েছেন।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, চাউলধনী হাওরের পাড় দিয়ে চৈতন নগর থেকে নিজ বাড়ি পর্যন্ত যাতায়াতের জন্য সড়ক বড় করছিলেন প্রবাসী সাইফুল। এজন্য তিনি নিহত সুমেলের চাচার জমি থেকে বিনা অনুমতিতে মাটি কেটে নিচ্ছিলেন। এতে তারা বাধা দিলে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে হাতাহাতির পর নিজের বন্দুক দিয়ে গুলি করে সাইফুল। এতে চারজন গুলিবিদ্ধ হলে তাদের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। হাসপাতালে সুমেল মারা যায়। আর বাকি ৩ জন চিকিৎসাধীন রয়েছে।

সিলেট জেলা পুলিশের বিশ্বনাথ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামীম মুসা জানান, ঘটনার খবর পেয়ে রাতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন চন্দ্র দাস, ওসমানী নগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলামসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে চারজনকে আটক করা হয়েছে। অন্যদের ধরতে অভিযান অব্যাহত আছে।